Autobiography

স্মৃতিকথা
Huseyn Shaheed Suhrawardy

Short Review: text

কত কথা কত স্মৃতি
Sri Dinesh Chandra Debnath

Short Review: ১৯১৮ সাল থেকে ১৯৮৯ এই গ্রন্থের বর্ণিত কাল। এই সময়টা বাংলাদেশের ইতিহাসের এক উন্মাতাল সময়। স্বদেশী আন্দোলন, বিশ্বযুদ্ধ, দুর্ভিক্ষ, সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা, দেশভাগ, ভাষা আন্দোলন, যুক্তফ্রন্ট, গণহত্যা, মুক্তিযুদ্ধ প্রভৃতি নানা বিপর্যয়, উৎকন্ঠা ও উত্তেজনার মধ্য দিয়ে বাংলার মানুষের জীবন কেটেছে। বাংলাদেশের সনাতন সমাজের চেহারা আমূল পরিবর্তিত হয়ে গেছে এই সময়ের পরিসরে। ‘স্মৃতিকথা’ ছাড়া এই বিগত সমাজের চেহারা আর কোথাও পাওয়া যাবে না। এই স্মৃতিকথাটি এই বিলুপ্ত সময়ের চিত্রকে, ঐ সময়ের আশা ও আশা-ভঙ্গের আনন্দ-বেদনাকে বড় নিপুনভাবে তুলে ধরেছে। লেখক আইনজীবী হিসেবে জীবন শুরু করলেও পরে বিচার বিভাগে বিচারক হিসেবে বাংলাদেশের বিভিন্ন শহরে জীবন কাটিয়েছেন। সরকারি চাকরি থেকে অবসর গ্রহণের পরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগে প্রায় দশ বছর শিক্ষকতাও করেছেন। ঐ সময়ে বাংলায় ছয়খানা আইনগ্রন্থ প্রণয়ন করেন। বায়াত্তর বছর বয়সে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অবসর জীবনযাপনকালে তিনি এই মূল্যবান স্মৃতিগ্রন্থটি লেখেন।

বিচারক জীবনের স্মৃতিচারণ
Gazi Shamsur Rahman

Short Review: নিরপেক্ষ বিচারে বিচারক জীবনই বা আইনের সাথে যুক্ত জীবনই লেখকের পরিবেশনযোগ্য একমাত্র জীবন বলে তিনি উল্লেখ করেছেন আত্নজীবনীতে। ১৯৪৪ থেকে ১৯৮৬ এই বেয়াল্লিশ বছরে আইন সব সময়ই লেখকের সাথে ছিলো- ছাত্র রূপে, প্রশিক্ষক রূপে, পরামর্শদাতা রূপে, লেখক রূপে, এবং সবশেষে বিচারক রূপে। স্মৃতিগ্রন্থে তিনি আরও লেখেন, “বিচারকরূপে আমার যে অস্তিত্ব, নিঃসন্দেহে সেটাই আমার সব নয়, তবুও কেবলমাত্র বিচারক জীবন ও কতিপয় সংশ্লিষ্ট প্রসংগ ও ভাবনা নিয়ে এই লেখনী চালনা।”

বিচারক জীবনের কিছু স্মৃতিকথা
Justice A.T.M. Fazle Kabir

Short Review: প্রতিটি আত্নজীবনীতেই ইতিহাস রচনার উপাদান থাকে। এই বিবেচনায় বিচারপতি কবীরের এই আত্নজীবনী মুক্তিযুদ্ধসহ গত শতকের শেষার্ধের বিচার বিভাগের নানা বিষয়ে ইতিহাসের উপকরণ সমৃদ্ধ। বিচারপতি কবীর যেমন এক স্টেশন থেকে অন্য স্টেশনে গিয়েছেন এবং প্রতিটি স্টেশনে তাঁর বিচিত্র অভিজ্ঞতা যেমন ফুলমিয়ার কাহিনী তেমনই একটা টেবিল ম্যাট কেনা নিয়ে যে তিক্ত কাহিনি তাও সুন্দরভাবে বর্ণনা করেছেন। পঞ্চগড় থাকাকালীন কাঞ্চনজঙ্ঘার দৃশ্য তাঁকে মোহিত করেছে, আবার খুলনা জেলা জজ থাকাকালীন সময়ে রূপসা নদীর তীরে বসে অবসর কাটান মুহুর্তগুলো তাঁকে মুগ্ধ করে রাখত তাও খুব সুন্দরভাবে বর্ণনা করেছেন। আমাদের দেশের বিচারকদের আত্নজীবনীর সংখ্যা অনেক কম বিধায় পাঠকগণ বিচারকের জীবনলব্ধ অভিজ্ঞতা থেকে বঞ্চিত মর্মে যে অভিযোগ রয়েছে, বিচারপতি কবীরের এই আত্নজীবনী তার অভাব অনেকখানি পূরণ করতে সমর্থ হবে।

A Broken Dream: Status of Rule of Law, Human Rights and Democracy
Justice Surendra Kumar Sinha

Short Review: Surendra Kumar Sinha kicked off his career journey as an advocate in the Sylhet Judge Court on 1974. He was in Sylhet until 1978. He moved to Dhaka when he enlisted as an advocate of High Court in 1978. In 1990, he was widely known as a lawyer of Appellate Division. On 1999, he joined as a Judge of the High Court. Ten years later on, he appointed as a Judge of the Appellate Division. SK Sinha’s long time cherished dream turned to true when appointed as the 21st chief justice of Bangladesh on 2015. He was a member of Appellate Division which removed caretaker government system canceling thirteen amendment of the Constitution. This book describes the backdrop of his ‘resignation’ and also makes insightful observations on Bangladesh’s numerous social and political issues including its evolving state of governance.